1. admin@alochitosangbad.com : admin :
June 29, 2022, 4:41 am
ব্রেকিং নিউজ :
ভারতে ২ বাংলাদেশি গ্রেফতার স্ত্রী-শাশুড়িসহ ৩ জনকে খুন, গ্রেফতার স্বামী ৩৪ হাজার ৪৯১ হজযাত্রী সৌদিতে পৌঁছেছেন আমি এখন শামুকের মতো হয়ে গেছি: মৌসুমী জন্মদিনের শুভেচ্ছায় ভাসছেন মেসি এবার হবিগঞ্জে বন্যার ভয়াবহতা বাড়ছে প্রায় ২৬ হাজার বাংলাদেশি হজযাত্রী সৌদি পৌঁছেছেন ত্রাণ বহনে বাস ভাড়া ‘ফ্রি’ আফগানিস্তানে রিখটার স্কেলে কম্পনের তীব্রতা ছিল ৬.১ বৃহস্পতিবার আবেদন শেষ আছিয়া সী ফুডের কিউআই তীব্র গরমে পুড়ছে দক্ষিণপূর্ব পাকিস্তানের চোলিস্তান আজ প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন বিস্ফোরণে চলন্ত এসি বাস পুড়ে ছাই নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে,বন্যা পরিস্থিতি আরো অবনতি হচ্ছে নেইমার অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে গেলেন

নবীকে (সা.) নিয়ে দুই বিজেপি নেতার মন্তব্য: বিশ্বজুড়ে প্রতিবাদ জানাল যেসব দেশ-সংগঠন

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট টাইম: মঙ্গলবার, জুন ৭, ২০২২,
  • 40 বার দেখা হয়েছে

ইসলামের নবী হজরত মুহাম্মদকে (সা.) নিয়ে ভারতের ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টি–বিজেপির দুই নেতার বক্তব্যের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে ২০টি দেশ ও সংগঠন। ওই দুই নেতার বক্তব্যে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বেশ বেকায়দায় পড়েছে মোদি সরকার। উপসাগরীয় দেশগুলোর পাশাপাশি উত্তর আফ্রিকার চারটি ও এশিয়ার চারটি দেশ তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে।

ইসলামের নবীকে নিয়ে বিজেপির মুখপাত্র ও দলটির দিল্লি ইউনিটের মিডিয়া সেলের প্রধান নূপুর শর্মার মন্তব্যের কারণে নজিরবিহীন কূটনৈতিক প্রতিক্রিয়ার মুখে বিজেপি সরকার। পরিস্থিতি বিবেচনায় বিজেপি একটি বিবৃতি দিয়েছে। সেখানে ওই দুই নেতার নাম উল্লেখ করা হলেও দলীয় পদবি উল্লেখ করা হয়নি। তাঁরা দুজন যে ধরনের মন্তব্য করেছেন সেটির প্রকৃতি নিয়েও কোনো আলোচনায় যায়নি দলটি। এমনকি, ভারতের যে জনগোষ্ঠী–ভারতীয় মুসলমান–ওই দুই নেতার বক্তব্যে সবচেয়ে বেশি আঘাত পেয়েছেন তাঁদের উদ্দেশেও কোনো বার্তা দেওয়া হয়নি।

অবশ্য বিজেপি বিদেশি প্রতিবাদের চাপে এরই মধ্যে নূপুর শর্মাকে বরখাস্ত এবং নবীন জিন্দালকে বহিষ্কার করেছে।

যেসব দেশ, সংস্থা এবং ধর্মীয় গোষ্ঠী বিজেপির ওই দুই নেতার বক্তব্যের প্রতিবাদ করেছে সেগুলো হলো:

১. কাতার
নবী মুহাম্মদকে (সা.) নিয়ে বিজেপির দুই নেতার মন্তব্যে প্রতিক্রিয়ায় কাতার দেশটিতে নিযুক্ত ভারতীয় রাষ্ট্রদূত দীপক মিত্তালকে তলব করে ভারত সরকারকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানিয়েছে। গত ৫ জুন কাতার সরকার এই পদক্ষেপ নেয়।

এমনকি দেশটিতে সফররত ভারতের উপরাষ্ট্রপতি ভেঙ্কাইয়া নাইড়ুর কাছেও কাছেও এই বিষয়ে তীব্র নিন্দা জানিয়েছে।

বিজেপির ওই দুই নেতার বক্তব্যের প্রতিবাদে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ঝড় তুলেছেন কাতারবাসীরা। জবাবে বিজেপি অনুসারীরাও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কাতার বর্জনের আহ্বান জানিয়েছে। টুইটারে #BycottQatarAirways এবং বয়কট কাতার ফুটবল বিশ্বকাপ ইত্যাদি লিখে জবাব দিচ্ছে।

এদিকে, কাতারে নিযুক্ত ভারতীয় রাষ্ট্রদূতকে তলবের পর ভারতীয় দূতাবাস থেকে একটি বিবৃতি দেওয়া হয়েছে। সেখানে উল্লেখ করা হয়েছে, ভারতে কোনো ব্যক্তির ‘আক্রমণাত্মক টুইট’ কোনোভাবেই ভারত সরকারের দৃষ্টিভঙ্গিকে প্রতিফলিত করে না। এসব মন্তব্য ‘বিচ্ছিন্ন অংশের’ দৃষ্টিভঙ্গি মাত্র।

২. কুয়েত
কুয়েত সরকারও দেশটিতে নিযুক্ত ভারতীয় রাষ্ট্রদূত সিবি জর্জকে তলব করে অফিশিয়াল প্রতিবাদলিপি হস্তান্তর করেছে। তাতে কুয়েতের তরফ থেকে বিজেপির ওই দুই নেতা নবী মুহাম্মদ সা. সম্পর্কে যে মন্তব্য করেছেন তার দৃঢ় প্রত্যাখ্যান এবং তীব্র নিন্দা জানানো হয়েছে। দেশটি বিজেপি ওই দুই নেতাকে বরখাস্ত করে যে বিবৃতি জারি করেছে তাকেও স্বাগত জানিয়েছে।

কুয়েতের এমন প্রতিক্রিয়ায় দেশটিতে থাকা ভারতীয় দূতাবাস কাতারে ভারতীয় দূতাবাসের মতো একইরকম বিবৃতি দিয়ে নিজেদের অবস্থান জানিয়েছে।

এদিকে, ওই বিতর্কিত মন্তব্যের প্রতিবাদে কুয়েতের একটি সুপারমার্কেট সব ধরনের ভারতীয় পণ্য নিষিদ্ধ করেছে।

৩. ইরান
একই ঘটনায় গত ৫ জুন সন্ধ্যায় ইরানে নিযুক্ত ভারতীয় রাষ্ট্রদূত গাদ্দাম ধর্মেন্দ্রকে তলব করা হয়েছিল ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে। ইরানের সংবাদমাধ্যম মেহের নিউজ জানিয়েছে, ইরান নবী মুহাম্মদ সা. নিয়ে বিজেপি নেতাদের বিতর্কিত মন্তব্যের ‘কড়া প্রতিবাদ’ জানিয়েছে।

মেহের নিউজ আরও জানিয়েছে, ভারতীয় রাষ্ট্রদূত দুঃখ প্রকাশ করেছেন এবং বলেছেন, ইসলামের নবীকে নিয়ে যেকোনো অবমাননা অগ্রহণযোগ্য। এমন এক সময় এই ঘটনা ঘটল যখন ইরানের বর্তমান পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আব্দুল্লাহিয়ান ভারত সফরের পরিকল্পনা করেছিলেন।

তবে এই বিষয়ে ভারতের পক্ষ থেকে কোনো ধরনে আনুষ্ঠানিক বক্তব্য জানানো হয়নি।

৪. সৌদি আরব
ঘটনার একদিন পর সৌদি আবর ওই বিতর্কিত বিষয়ে তাদের অবস্থান ব্যক্ত করে। দেশটি বক্তব্যের তীব্র নিন্দা জানিয়ে সকলের ‘ধর্ম ও বিশ্বাসের প্রতি সম্মান’ প্রদর্শনের আহ্বান জানিয়েছে। দেশটি বলেছে, ওই বক্তব্যের মাধ্যমে নবী মুহাম্মদ সা. এর অবমাননা করা হয়েছে।

সৌদি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে নিজেদের অবস্থান পরিষ্কার করেছে। বিবৃতিতে দেশটি, ‘ইসলামের বিরুদ্ধে যেকোনো বিদ্বেষকে চূড়ান্তভাবে প্রত্যাখ্যান’ করার বিষয়টি পুনর্ব্যক্ত করেছে। বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, সকল ধর্মীয় ব্যক্তিত্ব এবং প্রতীকের বিরুদ্ধে বিদ্বেষ ছড়ায় এমন সব কর্মকাণ্ডকেও চূড়ান্তভাবে প্রত্যাখ্যান করে বলে জানিয়েছে।

তবে ঘটনার পর বিজেপি ওই মুখপাত্রকে বরখাস্ত করার বিষয়টিকে স্বাগত জানিয়েছে।

এদিকে, সৌদি আরবের জ্যেষ্ঠ আলেমদের নিয়ে গঠিত কাউন্সিলও বিজেপির ওই দুই নেতার বিতর্কিত বক্তব্যের সমালোচনা করেছে। তাঁরা নবী মুহাম্মদ সা. এর চরিত্র এবং তাঁর কর্ম নিয়ে কোরআনের একটি আয়াতও উদ্ধৃত করে।

মক্কা কর্তৃপক্ষ 
মক্কার মসজিদুল হারাম এবং মদিনা মসজিদে নববীর কর্তৃপক্ষ সৌদি সরকারের আনুষ্ঠানিক প্রতিবাদের বাইরেও নবীকে নিয়ে ‘অবমাননাকর বক্তব্যের’ প্রতিবাদ জানিয়েছে।

এ ক্ষেত্রেও ভারতের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক কোনো জবাব বা মন্তব্য করা হয়নি।

৫. ওমান
ওমান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আন্ডার সেক্রেটারি শেখ খলিফা বিন আলি আল হারদি দেশটিতে নিযুক্ত ভারতীয় রাষ্ট্রদূত অমিত নারাঙকে তলব করেছিল। দেশটি জানিয়েছে, বিজেপির ওই দুই নেতার ‘আক্রমণাত্মক বক্তব্যের’ নিন্দা জানিয়েছে। ওমানও ঘটনার পর ওই দুই নেতাকে বরখাস্ত করতে বিজেপি গৃহীত পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছে।

এ ক্ষেত্রে ভারত এখনো কোনো আনুষ্ঠানিক বক্তব্য দেয়নি।

৬. বাহরাইন
বিজেপি নেতাদের বক্তব্যের বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানিয়ে গত সোমবার নিজেদের অবস্থান ব্যক্ত করে বিবৃতি দিয়েছে বাহরাইনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

বিবৃতিতে বিজেপি গৃহীত পদক্ষেপকে স্বাগত জানালেও বাহরাইনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, ‘মুসলমানদের অনুভূতিতে উসকানি এবং ধর্মীয় বিদ্বেষের প্ররোচনা হিসাবে নবী মুহাম্মদ সা. এর বিরুদ্ধে যে কোনো নিন্দনীয় অবমাননাকে নিন্দা করতে হবে।’

এ ক্ষেত্রেও ভারত এখনো কোনো আনুষ্ঠানিক বক্তব্য দেয়নি।

৭. আফগানিস্তান
তালেবানের নেতৃত্বাধীন আফগানিস্তানের সরকারও বিজেপির নেতাদের বক্তব্যের তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করে বিবৃতি জারি করেছে। দেশটির সবচেয়ে বড় সংবাদ সংস্থা পাজওয়ক নিউজ এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

সংবাদ সংস্থাটি তালেবান মুখপাত্র জাবিহুল্লাহ মুজাহিদকে উদ্ধৃত করে জানিয়েছে জাবিহুল্লাহ মুজাহিদ এক টুইটে বলেছেন—‘ইসলামিক আমিরাত আফগানিস্তান ভারতের ক্ষমতাসীন দলের নেতা কর্তৃক ইসলামের নবী (সা.) এর বিরুদ্ধে অবমাননাকর শব্দ ব্যবহারের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে। আমরা ভারত সরকারের প্রতি আহ্বান জানাই, এই ধরনের ধর্মান্ধদের যেন ইসলামের অবমাননা এবং মুসলমানদের অনুভূতিতে উসকানি দিতে না দেওয়া হয়।’

আফগানিস্তানের অবস্থানের বিপরীতেও ভারত কোনো বক্তব্য দেয়নি।

৮. ইন্দোনেশিয়া
বিজেপি নেতাদের মন্তব্যের নিন্দা কেবল উপসাগরীয় দেশগুলোতেই সীমাবদ্ধ ছিল না। বিশ্বের সবচেয়ে জনবহুল মুসলিম দেশ ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ও ভারতীয় রাষ্ট্রদূতকে তলব করেছিল।

দেশটি বিজেপির দুই রাজনীতিবিদ কর্তৃক নবী সা. এর বিরুদ্ধে ‘অগ্রহণযোগ্য অবমাননাকর মন্তব্যের’ তীব্র নিন্দা জানিয়েছে।

এ ক্ষেত্রে ইন্দোনেশিয়ার প্রতিক্রিয়ার কোনো জবাব দেয়নি ভারত।

৯. সংযুক্ত আরব আমিরাত
এ ঘটনায় উপসাগরীয় দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে পরে বিবৃতি দিয়েছে আরব আমিরাত। এক বিবৃতিতে দেশটির পররাষ্ট্র ও আন্তর্জাতিক সহযোগিতা মন্ত্রণালয় বিজেপি নেতাদের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে বলেছে তাঁরা ‘নৈতিক ও মানবিক মূল্যবোধ এবং নীতির পরিপন্থী সমস্ত অনুশীলন ও আচরণ দৃঢ়ভাবে প্রত্যাখ্যান’ করেছে।

ভারত আরব আমিরাতের প্রতিবাদেরও কোনো জবাব দেয়নি।

১০. জর্ডান
জর্ডানও বিজেপির ওই দুই নেতার আপত্তিকর বক্তব্যের ‘শক্তিশালী ভাষায় প্রতিবাদ’ জানিয়েছে।

জর্ডানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হাইথাম আবু আলফুল বলেছেন, তাঁরা ‘ইসলামি এবং অন্যান্য ধর্মীয় ব্যক্তিত্বের বিরুদ্ধে যেকোনো ধরনের লঙ্ঘনকে প্রত্যাখ্যান করে এবং বিজেপির ওই দুই নেতার বক্তব্যকে চরমপন্থা ও ঘৃণা পোষণ করে এমন একটি কাজ হিসাবে বিবেচনা করছে।

জর্ডানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আরও বলেন, বিজেপির মুখপাত্রকে বরখাস্ত করার সিদ্ধান্ত ‘একটি সঠিক পদক্ষেপ’।

জর্ডানের প্রতিক্রিয়ারও কোনো জবাব দেয়নি ভারত।

১১. মালদ্বীপ
দক্ষিণ এশিয়ায় ভারতের সবচেয়ে ঘনিষ্ঠ মিত্রদের একটি মালদ্বীপ। দেশটি বিজেপির ওই দুই নেতার বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে বলেছে, তাঁরা ‘অবমাননাকর মন্তব্যের জন্য গভীরভাবে উদ্বিগ্ন।’

মালদ্বীপ ঘটনার পর ওই দুই নেতাকে বরখাস্ত করতে বিজেপি গৃহীত পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছে।

ভারত এ ক্ষেত্রেও কোনো জবাব দেয়নি।

১২. ইরাক
ঘটনার পর ইরাক সোমবার ভারতীয় রাষ্ট্রদূতকে তলব করে। সেসময় ইরাক এক বিবৃতিতে বলেছে, “এ ধরনের বিদ্বেষপূর্ণ ও অসম্মানজনক কাজগুলো ভয়াবহ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করতে পারে। যদি এসব কাজ প্রতিহত করা না হয়, তবে তা ভয়ানক পরিণতির দিকে মোড় নিতে পারে। যা শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান নষ্টের পাশাপাশি অকল্পনীয় ক্ষতির কারণ হতে পারে, সেই সঙ্গে জনগণের মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধি করবে।’

বাগদাদের ভারতীয় দূতাবাস কাতারের ভারতীয় দূতাবাসের অনুকরণে একই জবাব দিয়েছে।

১৩. লিবিয়া
উত্তর আফ্রিকার দেশ লিবিয়াও বিজেপির দুই নেতার বক্তব্যকে ‘অপমানজনক বক্তব্য’ বলে আখ্যা দিয়ে এর প্রতিবাদ জানিয়েছে। তবে ভারত কোনো জবাব দেয়নি।

১৪. পাকিস্তান
পাকিস্তান নবীর (সা.) বিরুদ্ধে বিজেপির দুই নেতার বিতর্কিত মন্তব্যকে স্পষ্টভাবে প্রত্যাখ্যান করে এর নিন্দা জানাতে ভারতীয় শার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্সকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করেছিল।

পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ভারতীয় কূটনীতিককে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যে—এই মন্তব্যগুলো ‘সম্পূর্ণভাবে অগ্রহণযোগ্য এবং তা কেবল পাকিস্তানের নয়, সারা বিশ্বের মুসলমানদের অনুভূতিকে গভীরভাবে আঘাত করেছে।

পাকিস্তান সেনাবাহিনীও ঘটনার নিন্দা করে একটি পৃথক বিবৃতি দিয়েছে।

পাকিস্তানের প্রতিবাদের জবাবে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচি বলেছেন, ‘সরকার সব ধর্মকে সর্বোচ্চ সম্মান দেয়। ভারত সরকার পাকিস্তানের থেকে সম্পূর্ণ আলাদা। পাকিস্তানে ধর্মান্ধদের প্রশংসা করা হয় এবং তাদের সম্মানে স্মৃতিস্তম্ভ তৈরি করা হয়।

মিশর: ধর্মীয় ইস্যুতে নমনীয় মিশর সরকার এই ইস্যুতে কোনো প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেনি। তবে দেশটির দুই প্রধান ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান জোরালো প্রতিবাদ জানিয়েছে।

১৫. আল আজহার বিশ্ববিদ্যালয়
মুসলমানদের অন্যতম প্রাচীন বিদ্যাপীঠ আল আজহার বিশ্ববিদ্যালয়ও বিজেপির দুই নেতার বক্তব্য নিয়ে বিবৃতি দিয়েছে।

আল আজহারের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘অজ্ঞ ভারতীয়’ যে মন্তব্য করেছে তা কেবল ‘চরমপন্থার সমর্থক এবং ঘৃণা ও রাষ্ট্রদ্রোহিতার সমর্থক এবং বিভিন্ন ধর্ম, সভ্যতা ও সংস্কৃতির অনুসারীদের মধ্যে শত্রুতার নীতি’ থেকেই উদ্ভূত হতে পারে।

ভারত এ ক্ষেত্রেও কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি।

১৬. মিশরের গ্র্যান্ড মুফতি
মিশরের গ্র্যান্ড মুফতি শাওকি আলামও বিজেপি নেতাদের বক্তব্যের নিন্দা করেছেন। তিনি বলেছেন, এ ধরনের ‘অপমান ঘৃণার অনুভূতিকে উসকে দেয় এবং রাষ্ট্রদ্রোহিতা বাড়ায়।’ আলাম নবী, ধর্ম, পবিত্র স্থান এবং ধর্মীয় প্রতীকগুলোর বিরুদ্ধে অবমাননাকে অপরাধ হিসেবে বিবেচনা করার আহ্বান জানিয়েছেন।

ভারত এ ক্ষেত্রেও কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি।

১৭. তুরস্ক
তুরস্কের ক্ষমতাসীন একে পার্টির সদস্য ও সাংবাদিক এবং সাবেক মন্ত্রী ওমের সেলিক বিজেপি নেতাদের মন্তব্যের নিন্দা করেছেন। সেলিক তাঁর টুইটারে লিখেছেন, ‘আমরা নবীর বিরুদ্ধে ভারতীয় শাসক দল–বিজেপির একজন কর্মকর্তার অবমাননাকর বক্তব্যের তীব্রতম শব্দে নিন্দা জানাচ্ছি। এটি শুধু ভারতের মুসলমানদের জন্যই নয়, সারা বিশ্বের মুসলমানদের জন্যও অপমানজনক।

সেলিক আরও বলেন, ‘তুরস্ক আশা করে—ভারত সরকার ‘ক্রমবর্ধমান ইসলামভীতির বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা’ গ্রহণ করবে এবং মুসলমানদের ধর্মীয় স্বাধীনতাকে শক্তিশালী করবে।

এ ক্ষেত্রে ভারত কোনো প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করছে বলে জানা যায়নি।

১৮. মালয়েশিয়া 
মালয়েশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিজেপি নেতাদের মন্তব্যের নিন্দা করেছে এবং ভারতীয় হাইকমিশনারকে তলব করেছে।

একটি বিবৃতিতে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, তাঁরা ‘উসকানিমূলক মন্তব্য’ দেওয়ার কর্মকর্তাদের বরখাস্ত করার বিজেপির সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে এবং ভারতকে ইসলামভীতি শেষ করতে এবং উসকানিমূলক কর্মকাণ্ড বন্ধ করার জন্য কাজ করতে আহ্বান জানিয়েছে।

ভারতীয় কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি।

১৯. অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কো-অপারেশন (ওআইসি) 
৫৭টি মুসলিম দেশের সংগঠন অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কো-অপারেশন (ওআইসি) বিজেপি নেতাদের মন্তব্যের নিন্দা করেছে এবং ভারতে মুসলমানদের ‘পরিকল্পিত’ হয়রানির বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। ওআইসি ভারতে মুসলমানদের অধিকার সুরক্ষিত করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে জাতিসংঘের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

ভারতীয় প্রতিক্রিয়া: ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেছেন, ভারত সরকার ‘ওআইসি সচিবালয়ের অযৌক্তিক এবং সংকীর্ণ মন্তব্যকে’ স্পষ্টভাবে প্রত্যাখ্যান করে।

আপত্তিজনক টুইট ও মন্তব্যগুলো ভারত সরকারের দৃষ্টিভঙ্গি প্রতিফলিত করে না উল্লেখ করে তিনি জোর দিয়ে বলেন, ‘আমরা ওআইসি সচিবালয়কে তার সাম্প্রদায়িক দৃষ্টিভঙ্গি অনুসরণ করা বন্ধ করতে এবং সমস্ত ধর্মের প্রতি যথাযথ সম্মান প্রদর্শনের জন্য অনুরোধ করব।’

২০. গালফ কো-অপারেশন কাউন্সিল (জিসিসি)
আঞ্চলিক সহযোগিতা সংস্থা গালফ কো-অপারেশন কাউন্সিলও এই মন্তব্যের নিন্দা জানিয়ে একটি বিবৃতি জারি করেছে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, গালফ কো-অপারেশন কাউন্সিলের (জিসিসি) মহাসচিব মহাসচিব ডা. নায়েফ ফালাহ এম আল হাজরাফ নবী মোহাম্মদ সা. এর বিরুদ্ধে ভারতীয় ভারতীয় জনতা পার্টির মুখপাত্রের বক্তব্যের নিন্দা, প্রত্যাখ্যান ও নিন্দা করেছেন।

ভারতীয় প্রতিক্রিয়ায় কোনো বক্তব্য দেয়নি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: রাহাত আইটি লিমিটেড

সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২২ আলোচিত সংবাদ
ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায় রাহাত আইটি লিমিটেড