আলোচিত সংবাদ
সত্যের কথা বলে

সমালোচনার পরেও কেন শীর্ষ স্থানে কাজী সালাউদ্দিন?

কাজী সালাউদ্দিনকে টেক্কা দেয়ার মতো দক্ষ কোন ফুটবল সংগঠক নেই। তাই বারবার তিনি নির্বাচিত হচ্ছেন বাফুফে সভাপতি পদে। এমনটাই মনে করেন কাউন্সিলররা। সালাহউদ্দিনকে নির্বাচিত করার পেছনে ফিফা-এএফসিতে তার যোগাযোগের বিষয়টিও ডেলিগেটরা বিবেচনায় রাখেন বলে মত তাদের। তবে ফুটবল পরিচালনা করতে গিয়ে বিগত দিনে তিনি যে সব ভুল করেছেন তার আর পুনরাবৃত্তি চাননা তৃণমূলের সংগঠকরা।
চতুর্থ বারের মত বাফুফের সভাপতি কাজী সালাহউদ্দিন। এমন অর্জনে বিভিন্ন মহল থেকে তার এখন অভিনন্দনে সিক্ত হওয়ার পালা। ভোট যুদ্ধে নেমে সম্মুখীন হয়েছে নানা আলোচনা-সমালোচনার। তবে কেউ টলাতে পারেনি তার মসনদ।
গেল ১২ বছরের দায়িত্বে অনেক ভুল আছে সালাউদ্দিনের। তারপরও তিনি নির্বাচিত হয়েছেন সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে। কিন্তু কি সেই কারণ? শত নেতিবাচক খবরের শিরোনাম হয়েও কেন তিনি ডেলিগেটদের পছন্দের তালিকায় শীর্ষ স্থানে!
কারওয়ান বাজার প্রগতি সংঘের ডেলিগেট মোশারফ হোসেন বলেন, ‘যদি এফসিতে যান তাহলে দেখবেন তার দক্ষতা, আপনি দেখবেন ফিফাতে যান সেখানে তার সুনাম রয়েছে। কাজী সালাউদ্দিনের মত আমরা যদি একটা সালাউদ্দিন পেতাম। তার মত দক্ষ সংগঠক যদি তার বিপরীতে ক্যান্ডিডেট হতো তাহলে অবশ্যই আমরা ফুটবল ডেভেলপমেন্ট করার জন্য তাকে বিজয়ী করার চেষ্টা করতাম।
কুড়িগ্রামের ডেলিগেট ভানুষ রঞ্জন দাশ বলেন, ‘খেলা এবং সংগঠক দুটোই কাজী মোহাম্মদ সালাউদ্দিন সব সময় উপরে বিরাজ করে। তার সময়ে জেলা বিভাগ সব জায়গাতে যথেষ্ট উন্নতি হয়েছে।’
নির্বাচনে জয়ী হতে প্রতিশ্রুতির ফানুস উড়িয়েছিলেন কাজী সালাহউদ্দিন। এমন আশ্বাস দিনি দিয়েছিলেন আগেও। যার অনেক কিছুই খুজলে পাওয়া যাবে কথা না রাখার খাতায়। কিন্তু এবার সেই ভুলের আর পুনরাবৃত্তি চাননা ডেলিগেটরা।
মোশারফ হোসেন বলেন, ‘জেলা ও ক্লাবগুলির যে চাহিদা মোতাবেক ফুটবল তৈরী করার যে তৃণমূল জায়গাটা সে জায়গাটাকে তিনি যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন সেখান থেকে সরে আসার কোন সুযোগ নেই।
© আলোচিতসংবাদ।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.