আলোচিত সংবাদ
সত্যের কথা বলে

দুই যুগ পর রিপাবলিকান ঘাঁটি অ্যারিজোনায় ডেমোক্র্যাটদের জয়

প্রায় দুই যুগ পর রিপাবলিকান ঘাঁটি অ্যারিজোনায় ডেমোক্র্যাটদের প্রথম জয় এনে দিলেন প্রেসিডেন্ট প্রার্থী জো বাইডেন। ফলে রাজ্যটির ১১টি ইলেকটোরাল ভোটই যাচ্ছে নীল শিবিরে।

আন্তর্জাতিক বার্তাসংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস জানিয়েছে, ৭২ লাখ ৭৯ হাজার জনসংখ্যা বিশিষ্ট অঙ্গরাজ্য অ্যারিজোনায় এবারের নির্বাচনে আগাম ভোটের নতুন রেকর্ড সৃষ্টি হয়েছে। নির্বাচনী দিনের আগেই সেখানকার অন্তত ২৬ লাখ ভোটার আগাম ভোট দিয়েছেন।

অ্যারিজোনায় ল্যাটিনো জনগোষ্ঠীর আকার ক্রমাগত বাড়ছে। ফলে অঙ্গরাজ্যটিতে কয়েক বছর ধরেই রাজনৈতিক পট পরিবর্তনের আশা করছিলেন বিশ্লেষকরা।

ডেমোক্র্যাটরাও ১৯৯৬ সালের পর রিপাবলিকানদের হাত থেকে অ্যারিজোনা উদ্ধারের চেষ্টায় ছিল। তবে এবারের নির্বাচনেও যে সেটি সহজ হবে না তা বোঝা যাচ্ছিল প্রচারণা দেখেই।

নির্বাচনের দিনও অঙ্গরাজ্যটিতে ব্যাপক প্রচারণা চালিয়েছে ট্রাম্প বাহিনী। গত সপ্তাহে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ও ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স স্বশরীরে উপস্থিত হয়ে সেখানে প্রচারণায় অংশ নেন।

তবে বাইডেনের রানিংমেট ডেমোক্র্যাট ভাইস প্রেসিডেন্ট প্রার্থী কমলা হ্যারিসও গত সপ্তাহে ফিনিক্স ও টাকসন সফর করে প্রচারণা চালিয়েছেন। তাদের এ চেষ্টা যে সফল হয়েছে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের তথ্যমতে, নির্বাচনে এপর্যন্ত ২৩৮টি ইলেকটোরাল ভোট পেয়ে এগিয়ে রয়েছেন ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন। আর ডোনাল্ড ট্রাম্প পেয়েছেন ২১৩টি ইলেকটোরাল ভোট।

এখনও সাতটি অঙ্গরাজ্যে পপুলার ভোটে বিজয়ীর নাম জানা বাকি রয়েছে। এর মধ্যে ব্যাটলগ্রাউন্ড মিশিগান, নেভাদা ও উইসকনসিনে এগিয়ে রয়েছেন বাইডেন। হিসাব অনুসারে, রাজ্য তিনটিতে জিতলে প্রেসিডেন্ট হওয়া অনেকটাই নিশ্চিত তার।

তবে সম্ভাবনা রয়েছে ট্রাম্পেরও। তিনি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ব্যাটলগ্রাউন্ড পেনসিলভানিয়া, নিউ ক্যারোলিনা, জর্জিয়া ও আলাস্কায় এগিয়ে রয়েছেন। এসব রাজ্যে জিতলে অবশ্য তার মোট ইলেকটোরাল ভোট হবে ২৬৭টি। সেক্ষেত্রে প্রেসিডেন্ট হতে এ রিপাবলিকান নেতাকে অবশ্যই মিশিগানেও জয়ী হতে হবে।

তবে এবারের নির্বাচনে ১০ কোটির বেশি আগাম ভোট (ডাকভোট) পড়েছে। সেগুলো যোগ হলেও বদলে যেতে পারে গোটা ভোটের হিসাব-নিকাশ। কারণ, কোনও অঙ্গরাজ্যে পপুলার ভোটে জয়ী হলে সেখানকার সব ইলেকটোরাল ভোটই চলে যায় বিজয়ীর পকেটে।

এখন পর্যন্ত মোট পপুলার ভোটে এগিয়ে রয়েছেন বাইডেন, তবে ইলেকটোরাল ভোটে ট্রাম্পের জয়ের সম্ভবনা উড়িয়ে দেয়া যাচ্ছে না। আবার ডাকভোট যোগ হলে মিশিগানের মতো অঙ্গরাজ্যগুলোতে বিজয়ীর নাম পরিবর্তন হওয়ারও সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে। ফলে মিশিগানে ট্রাম্প জিতলে তার ফের হোয়াইট হাউস দখলের পথ সুগম হবে, তেমনি বাইডেন জিতলে তারও প্রেসিডেন্ট হওয়ার সম্ভাবনা বাড়বে।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.