আলোচিত সংবাদ
সত্যের কথা বলে

মাদ্রাসার ছাত্রকে বলাৎকারের চেষ্টা শিক্ষক কারাগারে

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার সালান্দর ইউনিয়নের দারুল কওমি মাদ্রাসার ছাত্রকে বলাৎকারের চেষ্টার অভিযোগে মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক হাফেজ মাওলানা আশরাফুল ইসলামকে (২৫) কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।
ভুক্তভোগী ছাত্রের বাবা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছেন।

সোমবার (৯ নভেম্বর) দুপুরে ঠাকুরগাঁও জেলা জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে আরিফুল ইসলামের উপস্থিতিতে আদালতে ওই ছাত্র জবানবন্দি দেয়। পরে আদালত আটক শিক্ষক আশরাফুল ইসলামকে ঠাকুরগাঁও জেলা কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

আটক হাফেজ মাওলানা আশরাফুল ইসলাম দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার রাবিজপুর গ্রামের বাসিন্দা এবং ঠাকুরগাঁও জেলার সদর উপজেলার সালন্দর ইউনিয়নের দারুল কুরআন কওমি মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক।

ঠাকুরগাঁও সদর থানার ওসি তানভিরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে করেছেন।

তিনি বলেন, ৬ নভেম্বর শুক্রবার দুপুর দিকে সালন্দর ইউনিয়নের আরাজি সিংপাড়া গ্রামে অবস্থিত মাদ্রাসা প্রাঙ্গণের বায়তুন নুর জামে মসজিদের গোসলখানায় গোসল করছিল ৯ বছর বয়সী ঐ ছাত্র। এই সময় মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক আশরাফুল ইসলাম ঐ গোসলখানায় ঢুকে ছেলেটিকে বলাৎকারের চেষ্টা করেন।

ছাত্রটি কান্না করলে তাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে শিক্ষক কক্ষে চলে যান। পরে বাড়ি ফিরে ছেলেটি এই ঘটনাটি তার খালাকে জানায়। তিনি জানার পর ৮ নভেম্বর রোববার বিষয়টি ছাত্রের বাবা মাদ্রাসা কমিটিকে জানালে মাদ্রাসা কমিটি শিক্ষক আশরাফুলকে অফিস কক্ষে ডেকে বিষয়টি শোনেন।

পরে পুলিশে খবর দেওয়া হলে পুলিশ তাকে আটক করে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আশরাফুল ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন বলে জানান তিনি।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.