আলোচিত সংবাদ
সত্যের কথা বলে

বৃদ্ধা মাকে রাস্তার ধারে ফেলে রেখে যায় ছেলে ও পুত্র বধুরা

বগুড়ার শিবগঞ্জে প্রবাসীর বৃদ্ধা মা মোছাঃ ছখিনা বেওয়া (৭৫) কে রাস্তার পাশ্বে গোবরের ধারে ফেলে রেখে যায় ছেলে ও পুত্র বধুরা। জরুরী সেবা (৯৯৯) এ কল দিলে দ্রুত থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে তার বাড়িতে উঠিয়ে দেয়। ভুক্তভোগী ছখিনা বেওয়া উপজেলার সদর ইউনিয়নের সাদুল্যাপুর গ্রামের মৃতঃ আজগর আলীর স্ত্রী। গত রবিবার সন্ধায় এ ঘটনা ঘটে।

- Advertisement -

জানা যায়, উপজেলার সদর ইউনিয়নের সাদুল্যাপুর (দামপাড়া) গ্রামের মোছাঃ ছখিনা বেওয়া নামে এক বৃদ্ধা মাকে তার ছেলে ও পুত্রবধুরা দীর্ঘদিন যাবৎ ভরণ-পোষণ দিতে অপরাগতা প্রকাশ করে ও অশালীন ভাষায় কথা বলতো এবং অসদাচরণ করে আসছিলো। এরই সুত্র ধরে রবিবার বিকালে তার ছেলে ও পুত্রবধুরা বিভিন্ন অশালীন ভাষায় বকা ঝকা শুরু করে এক পর্যায়ে তারা বৃদ্ধাকে বাড়ির সামনে রাস্তার পার্শে গোবরের ধারে ফেলে রেখে যায়।

এই খবর পেয়ে বৃদ্ধার মেয়ে ও নাতনি গিয়ে প্রতিবাদ করলে, বৃদ্ধার ছেলে ও পুত্রবধুরা তাদের সাথে অসদাচরণ ও মারমুখী হয়। বৃদ্ধার মেয়ে ও নাতনী উপায় না পেয়ে সন্ধ্যায় জরুরী সেবা (৯৯৯) এ কল দিয়ে পুলিশের সহযোগিতা চায়। জরুরী সেবা (৯৯৯) থেকে বিষয়টি শিবগঞ্জ থানাকে অবগত করলে শিবগঞ্জ থানার জরুরী সেবা (৯৯৯) টিম দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে তার ছেলে ও পুত্র বধুদের সাথে কথা বলে বৃদ্ধা মাকে তার ছেলের বাড়িতে উঠিয়ে দেন।

শিবগঞ্জ থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক (এসআই) মোঃ আনোয়ার হোসেন এ প্রতিবেদক-কে বলেন, জরুরী সেবা (৯৯৯) থেকে বিষয়টি শিবগঞ্জ থানাকে অবগত করলে শিবগঞ্জ থানার জরুরী সেবা (৯৯৯) টিম দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে তার ছেলে ও পুত্র বধুদের সাথে কথা বলে বৃদ্ধা মাকে তার ছেলের বাড়িতে উঠিয়ে দেওয় হয়।

তিতাস থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আহসানুল ইসলাম জানান, নববধূ রনি খানমের অভিযোগের ভিত্তিতে নাজমুলকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.