আলোচিত সংবাদ
সত্যের কথা বলে

হত্যা মামলার রায়ের ২২ বছর পর নাম পাল্টে সংসার করছেন সাজাপ্রাপ্ত আসামি

হত্যা মামলার রায়ের ২২ বছর পর আমৃত্যু কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি মো. শহিদ মিয়াকে (৪৬) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মো. শহিদ মিয়া ময়মনসিংহ জেলার তারাকান্দা উপজেলায় তিলাটিয়া গ্রামের আবদুস সোবহানের ছেলে।

- Advertisement -

রোববার (১০ জানুয়ারি) দিবাগত রাতে তারাকান্দা থানার পুলিশ মো. শহীদ মিয়াকে ঢাকার দোহারের বানিঘাটা এলাকা থেকে গ্রেফতার করে। পরে সোমবার (১১ জানুয়ারি) বিকালে শহিদ মিয়াকে আদালদের নির্দেশে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, ১৯৯৮ সালে তারাকান্দা (তৎকালীন ফুলপুর) উপজেলায় তিলাটিয়া গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে খুন হন ইদ্রিস আলী। এ ঘটনায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা হলে পুলিশ তদন্ত শেষে আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। আদালত দীর্ঘদিন শুনানি শেষে ২০০৩ সালে মামলার রায় দেন। সেই রায়ে মো. শহীদ মিয়াকে যাবজ্জীবন (আমৃত্যু) কারাদণ্ডের আদেশ দেন।

এ বিষয়ে তারাকান্দা থানার ওসি আবুল খায়ের বলেন, জমি নিয়ে বিরোধে ইদ্রিস আলী হত্যার ঘটনায় আসামি হন শহিদ মিয়া। ঘটনার পর থেকেই পলাতক ছিলেন শহিদ মিয়া। এমতাবস্তায় বিচারকার্য শেষে শহিদ মিয়াকে আমৃত্যু কারাদণ্ডের আদেশ দেন আদালত। রায়ের ২২ বছর পর একমাস তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তা ও অন্যান্য মাধ্যমে শহিদ মিয়ার অবস্থান নিশ্চিত করে ঢাকার দোহার এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

তিনি আরও বলেন, ঢাকার দোহারে গিয়ে আসামি শহিদ মিয়া নিজের নাম পরিবর্তন করে আলী নাম ধারণ করেছিলেন। আলী নাম ব্যবহার করে বানিঘাটা এলাকায় বিয়ে করেন শহিদ। জমিজমা কিনে সেখানেই সংসার পেতেছিলেন বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.