আলোচিত সংবাদ
সত্যের কথা বলে

করোনায় আতংকিত না হয়ে সচেতন হই,জেলা পরিষদ সদস্য তুষার

 

জহিরুল ইসলাম ঠাকুরগাঁওঃ  আমার ব্যক্তিগত কিছু কথাঃ-সবাইকে সম্পূর্ণ লেখাটি পরার অনুরোধ করছি।
প্রিয় ভূল্লীবাসী, (বালিয়া, বড়গাঁও, আউলিয়াপুর, দেবীপুর ও শুকানপুকুর ইউনিয়ন) মহামারী করোনা ভাইরাসের কারণে সারা বিশ্ব আজ স্থবির, এর প্রভাব বাংলাদেশেও পরেছে। তাই মহামারী এই করোনার হাত থেকে বাংলাদেশের মানুষকে বাচাঁনোর জন্য বাংলাদেশ সরকার জরুরী প্রয়োজন ছাড়া সবাইকে বাসায় থাকার নির্দেশ দিয়েছেন এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য নির্দেশনা দিয়েছেন।
এর প্রেক্ষিতে আমরা সারা বাংলাদেশের ন্যায় ভূল্লী এলাকার মানুষ সরকারী নির্দেশনা মেনে চলছি। কিন্তু আমাদের ভূল্লী এলাকার শ্রমজীবী মানুষ, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী এবং বিভিন্ন দৈনিক পেশাজীবি মানুষ এই ১ মাস যাবৎ ঘরে বসে থেকে তাদের যতটুকু খাদ্য মজুদ তা কয়েকদিনের মধ্যে শেষ হয়ে যাওয়ায় বর্তমানে সে সকল মানুষ খাদ্যের অভাবে অনেক কষ্টে জীবনযাপন করছেন।

বাংলাদেশ সরকার বিভিন্নভাবে স্থানীয় জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসনের মাধ্যমে ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্যের মাধ্যমে কর্মহীন মানুষের মধ্যে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করছে। স্থানীয় বিভিন্ন সামাজিক সংস্থা এবং সংগঠন কর্মহীন মানুষের মাঝে খাবার সরবরাহ করছে।
এর পরও সরকার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন যেন একটা পরিবারও যেন খাদ্যের অভাবে কষ্ট না পায়, যা চলমান আছে এবং আগামীতেও চলবে। পাশাপাশি সমাজের বিত্তবান মানুষদেরও এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন।

আমি স্থানীয় সরকারের ঠাকুরগাঁও জেলা পরিষদ এর একজন নির্বাচিত সদস্য। আমার এলাকা বালিয়া, বড়গাঁও, আউলিয়াপুর ও দেবীপুর। আমি আমার পক্ষ থেকে ইতিমধ্যে ব্যক্তিগত ভাবে ৫০০ পরিবারের মাঝে খাবার বিতরণ করেছি এবং আমার জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে প্রায় ৪০০ পরিবারের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেছি।

কিন্তু বৃহৎ জনগোষ্ঠীর কর্মহীন মানুষের মাঝে এত অল্প সাহায্য খুব একটা ভূমিকা রাখতে পারছে না।

এরই মধ্যে আমাদের ভূল্লী এলাকার অনেক মানুষ যারা বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় চাকুরী, ব্যবসা বা বিভিন্ন কর্ম করেন, তাদের মধ্য হতে আমার পরিচিত কয়কজন বন্ধু, শুভাকাঙ্ক্ষী, ছোটভাই, বড়ভাই ভূল্লী এলাকার কর্মহীন মানুষের কথা ভেবে আমাকে মোবাইলে এবং এসএমএস-এর মাধ্যমে আমার সাথে যোগাযোগ করেন। তারা এলাকার এই কর্মহীন মানুষের মাঝে সাহায্যের হাতটুকু বাড়াতে চান।

কিন্তু একক কারও পক্ষে এই দূর্যোগ মোকাবেলা সম্ভব নয় বিধায় কেও কেও আমাকে প্রস্তাব করেন যে,
“আপনি যদি একটা উদ্যোগ গ্রহন করেন তাহলে আমরাও যার যতটুকু সামর্থ্য সবাই মিলে এক জায়গায় সেই অর্থ/সাহায্য ভূল্লী এলাকার বৃহত্তর ৫ টি ইউনিয়নের কর্মহীন মানুষের মাঝে সরকারের পাশাপাশি আমরাও সাহায্য করতে পারতাম।”

বর্তমানে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে বিধায় মোবাইলে ছাড়া একত্রে বসে কোনো আলোচনার সুযোগ নেই।

এমতাবস্থায় আমি কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারছি না বিধায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আমার ব্যক্তিগত কথাগুলো তুলে ধরলাম।

প্রাণের ভূল্লী এলাকার সকল ভাইবোন, বন্ধু, শুভাকাঙ্ক্ষীদের কাছে অনুরোধ করছি যে কিভাবে এই উদ্যোগ টি নেওয়া যায় সেই ব্যাপারে আপনারা আপনাদের সুচিন্তিত মতামত / পরামর্শ দিবেন।

আপনারা ফেসবুকে আপনার মতামতটি জানাতে পারেন অথবা ফেসবুকে না লিখেও আমার মেসেঞ্জারে বা সরাসরি মোবাইলেও জানাতে পারবেন। আমার মোবাইল নাম্বার 01716009324.

সকলের মতামত ও পরামর্শ গুলি পর্যালোচনা করে স্থানীয় প্রশাসনের সাথে আলাপ-আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ব্যপারে আপনার মতামতটুকু বড় ভূমিকা রাখবে ইনশাআল্লাহ।
এবং পরবর্তী করনীয় নির্ধারনে আবারও এভাবে যোগাযোগ করে সিদ্ধান্ত নিতে চাই।
সবাই ঘরে থাকুন, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন।

মোঃ রওশনুল হক (তুষার)
জেলা পরিষদ সদস্য ঠাকুরগাঁও
ওয়ার্ড নং-১৫

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.