আলোচিত সংবাদ
সত্যের কথা বলে

সিনহা হত্যা:লিয়াকতের ওপর দোষ চাপিয়ে বাঁচতে চাইছে ওসি প্রদীপ

সিনহা হত্যার ঘটনায় পুলিশের দায়ের করা মামলার তিন সাক্ষী বুধবার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। এ তিন সাক্ষী হলেন টেকনাফের মারিশবুনিয়া এলাকার নুরুল আমিন, নিজাম উদ্দিন ও মো. আয়াছ।

আলোচিত সংবাদঃ অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা সিনহা মো.রাশেদ খান হত্যা মামলার অন্যতম আসামি সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশকে অবশেষে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গঠিত তদন্ত কমিটি।

গতকাল বুধবার সকালে কমিটির চার সদস্য কক্সবাজার কারাগারে গিয়ে প্রদীপ কুমার দাশকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত সাড়ে ছয় ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন কারা সুপার মোজাম্মেল হোসেন।

এ সময় তদন্ত কমিটির প্রধান চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মিজানুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, আমরা দীর্ঘ সময় ধরে ওসি প্রদীপের সঙ্গে কথা বলেছি। তার দেওয়া তথ্য এবং আগে পাওয়া তথ্যগুলো বিশ্নেষণ করছি। আশা করছি, সরকারের দেওয়া নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই আমরা প্রতিবেদন দিতে পারব।

তদন্ত-সংশ্নিষ্ট একটি সূত্র মতে, জিজ্ঞাসাবাদে সিনহা হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ সরাসরি অস্বীকার করেছেন প্রদীপ। এ সম্পর্কিত অনেক বিষয় তিনি এড়িয়ে যান। কখনও হত্যার দায় চাপিয়েছেন পরিদর্শক লিয়াকত আলীর ওপর।

জিজ্ঞাসাবাদে প্রদীপ তদন্ত কমিটিকে বলেছেন, লিয়াকতের কাছ থেকে ফোনে খবর পেয়েই তিনি ঘটনাস্থলের রওনা হন। ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে তিনি দেখেন, সিনহার দেহ মাটিতে পড়ে রয়েছে। তখন সিনহাকে হাসপাতালে নেওয়ার নির্দেশ দেন। সিনহাকে বিলম্বে হাসপাতালে পাঠানোর জন্যও লিয়াকতের ওপর দোষ চাপান ওসি প্রদীপ।

তদন্ত-সংশ্নিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, ওসি প্রদীপ ও লিয়াকতের দেওয়া তথ্যে অনেক গরমিল রয়েছে। প্রদীপ এ ঘটনায় জড়িত ছিলেন না বলে দাবি করলেও লিয়াকতের জবানবন্দিতে তার সংশ্নিষ্টতার প্রমাণ পাওয়া গেছে।

মামলার অন্যতম তিন আসামির মধ্যে লিয়াকত ও নন্দ দুলাল আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিলেও প্রদীপ জবানবন্দি দিতে রাজি হয়নি। তদন্ত-সংশ্নিষ্ট কর্মকর্তাদের মতে, রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদকালে বহুল আলোচিত এই পুলিশ কর্মকর্তা নানা ছলচাতুরীর আশ্রয় নেন। অন্য আসামিদের দেওয়া অনেক তথ্য সম্পর্কে তাকে জিজ্ঞাসা করা হলেও কৌশলে তা এড়িয়ে গেছেন।

তিন সাক্ষীর স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি :এদিকে, সিনহা হত্যার ঘটনায় পুলিশের দায়ের করা মামলার তিন সাক্ষী বুধবার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। এ তিন সাক্ষী হলেন টেকনাফের মারিশবুনিয়া এলাকার নুরুল আমিন, নিজাম উদ্দিন ও মো. আয়াছ।

গতকাল সকাল ১০টার দিকে এ তিনজনকে আদালতে নিয়ে আসেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা খাইরুল ইসলাম। বিকেল ৩টা পর্যন্ত এ তিন সাক্ষী জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম তামান্না ফারাহর খাস কামরায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। এরপর আদালত থেকে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়।

তদন্ত কর্মকর্তা জানান, মঙ্গলবার এ তিনজনকে আদালতে হাজির করে দ্বিতীয় দফায় রিমান্ডে নেওয়া হয়। রিমান্ডের প্রথম দিনই তিন আসামি সিনহা হত্যা সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দেন। এ জন্য তাদের ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিতে আদালতে নিয়ে আসা হয়। স্বীকারোক্তি শেষে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে তিনজনকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

গত ৩১ জুলাই রাতে টেকনাফে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সিনহা। মেজর সিনহা খুনের ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশের দায়ের করা মামলার এ তিন সাক্ষীকে ১০ আগস্ট মারিশবুনিয়া এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.